শ্রীবরদীতে একই পরিবারে ৭ জনের ইসলাম গ্রহণ

প্রকাশিত: 2022-08-22
news-banner
ইমোঃ শামছুল হক, স্টাফ রিপোর্টার শেরপুরঃ
বাড়ির পাশে মসজিদের আজান শুনে এবং স্থানীয় মুসলমানদের ধর্মীয় রীতিনীতি ও আচার-আচরণে আকৃষ্ট হয়ে একই পরিবারের সাত সদস্য সনাতনি হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তারা গতকাল রোববার বিকালে এফিডেভিটের মাধ্যমে শেরপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে আইনগতভাবে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, শেরপুর জেলার সীমান্তবর্তী শ্রীবরদী উপজেলার ভেলুয়া ইউনিয়নের ভেলুয়া গ্রামের রবিদাস পরিবারের প্রধান মন্ডল রবিদাস দীর্ঘদিন থেকে তার বাড়ির পাশের মসজিদ থেকে আজানের শব্দ শুনে খুব ভালো লাগে এবং তিনি খুব মনোযোগ দিয়ে ওই আজান শুনতেন। মাঝে মাঝে লুকিয়ে লুকিয়ে নামাজও পড়তেন। এলাকার বিভিন্নজনের মুখে বিভিন্ন সুরা-কিরাত শুনে মুখস্ত করতেন। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে এলে মন্ডল রবিদাস গ্রামবাসী ও স্থানীয় মসজিদের ইমাম এবং ইউপি মেম্বারের কাছে পরামর্শ নেন কীভাবে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করবেন। এক পর্যায়ে গত ১৯ আগস্ট শুক্রবার রাতে তার স্ত্রী, পুত্র-কন্যা এবং এক নাতিসহ সাত জন কালেমা পড়ে তাদের বাড়িঘর ছেড়ে এক কাপড়ে বেরিয়ে এসে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে আশ্রয় নেন। পরে বিষয়টি স্থানীয়রা জানলে তারা তাদের পরামর্শে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে আদালতে গিয়ে আইনগতভাবে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।মন্ডল রবিদাসের বর্তমান নাম আব্দুল্লাহ। তিনি জানান, তিনি কারো প্ররোচনায় বা হুমকিতে ধর্মান্তরিত হননি। শান্তির ধর্ম ইসলামকে ভালোবেসে তিনি এবং তার পরিবার ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন।

এদিকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ জানান,মন্ডল রবিদাসের পরিবারের সদস্যরা স্বেচ্ছায় ইসলাম ধর্মের নানা আচার-আচরণে উদ্বুদ্ধ হয়ে এবং ইসলামকে ভালোবেসে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সুলতান সরকার জানান, রবিদাস পরিবার অনেক দিন থেকেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণের জন্য এলাকার বিভিন্ন মহলে যোগাযোগ ও পরামর্শ করে আসছিল। পরে রবিদাসের এক ভাইয়ের সাথে এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যের সাথে কথা বলে তাদের অনুমতিক্রমে প্রথমে কালেমা পড়ে এবং পরে এফিডেভিট করে আদালতের মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

এদিকে আদালতের মাধ্যমে আইনসম্মতভাবে তাদের ইসলাম ধর্ম গ্রহণে কার্যাদি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে আইনজীবী আলমগীর কিবরিয়া কামরুল জানিয়েছেন।

হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম যারা গ্রহণ করেছেন, তাদের ইসলামি নামকরণ করা হয়েছে যথাক্রমে মন্ডল রবিদাস থেকে আব্দুল্লাহ, তার স্ত্রী সুকিয়া থেকে আমেনা, মেয়ে সোনিয়া থেকে ফাতেমা, ছেলে শুভ থেকে ওমর ফারুক, আকাশ থেকে উসমান আলী ও বাদল থেকে হযরত আলী এবং নাতি লাবন থেকে হোসাইন।

আপনার মন্তব্য ছেড়ে দিন