শিরোনাম
নওগাঁ বলিহার পানিশাইলে ৭ বছরের শিশু ধর্ষনের চেষ্টার দায়ে আটক-১ – প্রথম বেলা

নওগাঁ বলিহার পানিশাইলে ৭ বছরের শিশু ধর্ষনের চেষ্টার দায়ে আটক-১

নওঁগা প্রতিনিধি:

নওগাঁ সদর উপজেলার বলিহার ইউনিয়নের (শরির মোড়) পানিশাইল গ্রামে আবেদ আলীর ছেলে আরমান হোসেন (১৬) পার্শবর্তী বাড়ীর  মোঃ মকলেছুরের মেয়ে মোছাঃ মীম (৭)কে ধর্ষনের চেষ্টা করে রক্তাক্ত করেছে।
মামলা সুত্রে ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়,
বখাটে আরমান অনেক আগে থেকেই মীম(৭)কে বিভিন্ন ভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করিত। শিশুটি কিছু না বোঝার কারনে বাবা-মাকে বলে দিতো। এবং এগুলো বিষয় নিয়ে কয়েকবার শাসন করার জন্য আবেদ ও আবেদের মা কে জানিয়ে দেয়।
ঘটনার দিন গত৬/০৮/২০২০ ইং তারিখে দুপুর অনুমান ১টার সময় বখাটে আরমান, শিশু মীমকে চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে পার্শবর্তী আব্দুলের পুকুরে গোসল করার জন্য নিয়ে যায়, এবং হরি খেলার ছলনায় মীমকে জড়িয়ে তার গোপন অঙ্গে আঙ্গুল দিয়ে চাপ দিলে, মীম চিৎকার করে কাঁদতে শুরু করিলে, মীমের চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসতে লাগলে বখাটে আরমান পালিয়ে যায়। এরপর রক্তাক্ত অবস্থায় মীমকে কাঁদিতে কাঁদিতে বাড়ী যেতে আশে পাশে লোকজন দেখিতে পায়। বাড়ী গিয়ে মীমকে কাঁপতে দেখে, তার নানীকে জিজ্ঞাসা করিলে সবকিছু খুলে বলিলে, তা গোপন রাখার জন্য মীমের বাবা মকলেছুর সকলকে অনুরোধ করে। পরেদিন মীমের বড় ভাই বাড়ীতে জানিতে পারিয়া বখাটে আরমানকে কয়েকটি কিল-ঘুষি মারে এবং আরমান তার বোনের সাথে যাহাকিছু করেছে সকল কিছু স্বীকার করে। পরবর্তীতে বখাটে আরমানের মা বাদী হয়ে তার ছেলেকে মার-পিট করার জন্য একটি অভিযোগ ভীমপুর তদন্ত কেন্দ্রে দিলে, এলাকার সবাই, বখাটে আরমানের মায়ের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। এবং মকলেছুরও পরবর্তী তার শিশু কন্যা মীমকে সঙ্গে নিয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানায় একটি মামলা করেন। নওগাঁ সদর মডেল থানার  অফিসার ইনচার্জ মোঃ সোহরাওয়ার্দী সাহেব বখাটে আরমানকে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে প্রেরন করেন।
এতে পানিশাইল গ্রামের শরির মোড় বাসী খুবই ওসি সাহেবের প্রতি খুব খুশি হয়েছে।

0 Reviews

Write a Review

Read Previous

পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে ব্ল্যাক বেঙ্গল জাতের ছাগলের মেলা অনুষ্ঠিত।  

Read Next

গাইবান্ধা সাঘাটায় যমুনার ভাঙনে শত শত বসতবাড়ি নদীগর্ভে গৃহহীন পরিবারগুলো চরম দুর্ভোগের কবলে

%d bloggers like this: