দল মনোনয়ন দিলে ডিএনসিসির ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে লড়বেন হাজী রেজাউল করিম পাভেল

মেহেদী হাসানঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর উত্তরা পশ্চিম থানার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাজী রেজাউল করিম পাভেল। বৃহত্তর উত্তরা এলাকার প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতা, রাজপথের অন্যতম কান্ডারী বর্তমান ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাজী জালাল উদ্দিন এর সুপুত্র হাজী রেজাউল করিম পাভেল। পিতার হাত ধরেই তার রাজনীতির প্রথম পাঠ। বঙ্গবন্ধুর নাম জপেই তার রাজনীতির হাতেখড়ি।

ছাত্র জীবনের প্রারম্ভেই ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতির সুচনা। সেই থেকে এখন অবধি সামনের পানে এগিয়ে চলা। দলের প্রয়োজনে সব সময় সামনের কাতারে থেকে রাজপথের প্রতিটি কর্মসূচি বাস্তবায়নে হাজী রেজাউল করিম পাভেল একজন অগ্র সৈনিক। ঢাকা সিটি কর্পোরেশন উত্তরের ১নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় নেতাদের তালিকায় হাজী রেজাউল করিম পাভেল অগ্রগন্য। পিতার সুনাম সেই সাথে তার নিজ গুনের সমাহারে হাজী রেজাউল করিম পাভেল এলাকার মানুষের কাছে স্বচ্ছ সাদা দীলের অতিপ্রিয় মানুষ। নিজ দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেলে আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ১ নং ওয়ার্ডে নির্বাচন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন উত্তরার তরুণ রাজনীতিবীদ ও সমাজসেবক হাজী রেজাউল করিম পাভেল।

সম্প্রতি দৈনিক প্রথম বেলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “দল থেকে যদি মনোনয়ন দেয় তবে নির্বাচনে প্রার্থী হতে আমি একান্ত আগ্রহী। এলাকাবাসী আমাকে নির্বাচন করতে উৎসাহ দিচ্ছেন, কিন্তু দল নমিনেশন না দিলে নির্বাচন করার ইচ্ছে আমার নেই। এছাড়া দলের জন্য যেকোন ত্যাগ স্বীকার করতেও আমি রাজি আছি।” তবে দল থেকে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে কতটুকু আশা রাখেন? প্রশ্ন করা হলে হাজী রেজাউল করিম পাভেল জানান, “হ্যা অবশ্যই আমি মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। কেননা আমি জীবনের শুরু থেকেই প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী। বর্তমানে আমি উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক।

তাছাড়া আমি পারিবারিকভাবেও বাংলাদেশ আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তাই দল থেকে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আমি সর্বদাই আশাবাদী।” কেননা, আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে এলাকার মানুষ ও সমর্থকদের বিশ্বাস এবং আস্থা নিয়েই পথ চলছি।” উল্লেখ্য যে, গত ৩ নভেম্বর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক দুই সিটি নির্বাচনের সময় নির্ধারণের মাস ঘোষণা করেছেন। মাত্র দুই মাস পর আগামী বছরের জানুয়ারিতেই ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ দুই সিটি নির্বাচনেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে।

চলতি মাস নভেম্বরের ১৮ তারিখের পর যেকোনো দিন তফসিল ঘোষণা করা হবে। গত রবিবার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) বৈঠক শেষে ইসি সচিব মো. আলমগীর সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

Read Previous

শাহজালালে ২৮৫০ পিস ইয়াবাসহ ফরিদপুর পলিটেকনিকের দুই ছাত্র আটক

Read Next

টঙ্গীতে পরিবহন ধর্মঘটে পুলিশের গাড়ীতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ, সাংবাদিক আহত

%d bloggers like this: