শিরোনাম
বাংলাদেশে দরিদ্রসীমার নিচে মানুষের সংখ্যা কমলেও, গৃহহীন মানুষের সংখ্যা এখন ও কমেনি পাঁচ ক্রিকেটারকে ‘স্পেশাল অ্যাওয়ার্ড’ দিলেন পাপন নামাজ পড়তে সমস্যা হওয়ার কারনে অভিনয় ছাড়লেন নায়িকা মুক্তি চঞ্চল-শাওনের ভাইরাল ‘যুবতী রাধে’ গান নিয়ে বেধেছে বিতর্ক হয়েছেন মাস্ক না পরলে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে সেবা পাওয়া যাবে না বলে নির্দশনা দিয়েছেন সরকার ১ নভেম্বর থেকে মাধ্যমিকের সিলেবাস শুরু হতে যাচ্ছে, ৮ নির্দেশনা জারি সাংবাদিকদের মানুষের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আজ শেরে বাংলা আবুল কাশেম ফজলুল হক এর ১৪৭তম জন্মবার্ষিকী শহরের আদলে হবে গ্রাম, একটি মাস্টারপ্লান গ্রহণ করেছে স্থানীয় সরকার এমএলএম ব্যবসার মাধ্যমে অসহায় মানুষদের লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে “এসএম ট্রেডিং”
উত্তরায় বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত – প্রথম বেলা

উত্তরায় বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ গত ৩১ আগস্ট বিকেলে জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে উত্তরার আলাওল এভিনিউর উত্তরা পাবলিক কলেজ প্রাঙ্গণে বিকেল ৫টায় অনুষ্ঠিত হলো বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে আলোচনা।
বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ শাহ আলমের সভাপতিত্বে এ সভায় আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের উত্তরা পশ্চিম ও পূর্ব থানা কমান্ড এর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুব উদ্দিন আহমেদ, উত্তরা পশিম থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও স্বাধীনতা পরিষদের আহ্বায়ক শেখ মামুনুল হক (শেখ মামুন), উত্তরা পাবলিক কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান এ. এইচ. এম. সেলিম, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী , উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের গীতিকার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার কবিরুজ্জামান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তরার সভাপতি নাট্যজন মিজানুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিষদ উত্তরার সভাপতি ড. খাদেমুল ইসলাম নয়ন।

অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন পর্ষদের সদস্য সচিব আশরাফ-উল-আলম সবুজের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন পর্ষদের আহ্বায়ক শফিউল গণি।

আলোচনায় উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের উত্তরা পশ্চিম ও পূর্ব থানা কমান্ড এর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট একজন রাষ্ট্রপ্রধানকে হত্যা করার মতো ইতিহাস দ্বিতীয়টি আর নেই। খন্দকার মোশতাকের মতো যদি একশ মোশতাকও চাইতো তবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারতো না, যদি না সামরিক বাহিনীর সহযোগিতা না পেত। আর সামরিক বাহিনীর মধ্যম কিংবা নিম্নশ্রেণির কোনো সহযোগিতায়ও এটি সম্ভব ছিল না যদি না ঊর্ধ্বতন কারো সাহযোগিতা না থাকতো। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যার সাথে জড়িত দেশি-বিদেশি সবাইকে বিচারের আওতায় আনতে একটি কমিশন গঠন করার আশা ব্যক্ত করেন।

তিনি আরও বলেন,বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে সামনে রেখে দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন। আগামী দিনে উন্নয়নের ধারাকে ত্বরান্বিত করতে আওয়ামী লীগ সরকারকে সহযোগিতা করতে হবে।
বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ করতে হলে তার আদর্শ ধারণ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন উত্তরা পশিম থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও স্বাধীনতা পরিষদের আহ্বায়ক শেখ মামুনুল হক (শেখ মামুন)। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, হত্যাকারীরা জানত বঙ্গবন্ধুর রক্তের ছিটেফোটাও যদি থাকে তাহলে তাকে কেন্দ্র করে বাংলার মানুষ আবার ঘুরে দাঁড়াবে। ওদের আশঙ্কা যে সঠিক ছিল সেটা প্রমাণ করে নাই? আজ সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ দেশের জনগণ আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরুদ্ধে জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখল করে ধর্মনিরপেক্ষতা বাতিল করে ধর্মীয় রাজনীতি চালু করে। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের উচ্চপদে পদায়নের জন্য বিভিন্ন দূতাবাসে সুযোগ করে দিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধুর খুনে মদতদাতাদেরও বিচারের আওতায় আনার কথা বলে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, জিয়াউর রহমান সমস্ত কর্মকাণ্ডে প্রমাণ রেখেছেন তিনি বঙ্গবন্ধুর খুনি। বঙ্গবন্ধুকে যারা খুন করেছে তাদের শাস্তি হয়েছে। কিন্তু খুনে যারা সহায়তা করেছে, সেদিন পাকিস্তান দূতাবাস ও মার্কিন দূতাবাস সারারাত খোলা ছিল। সেগুলোর কারণ উদঘাটনের জন্যই আজকে দাবি উঠেছে কমিটি গঠন করে, তদন্ত কমিশন করে বঙ্গবন্ধুর খুনের মদতদাতা কারা এদের খুঁজে বের করতে হবে। আমাদের সফল রাষ্ট্রনায়ক ৪৭ বছর পর যদি যুদ্ধাপরাধের বিচার করতে পারেন এ বিশ্বাসও আমরা রাখি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের মদতদাতাদেরও বিচারও বাংলার মাটিতে হওয়া সম্ভব।


সভাপতির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ শাহ আলম বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে দেশ-বিদেশে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করতে সকল মুজিব আদর্শে বিশ্বাসীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশন সে লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য নেতৃত্বের কারণেই আমরা একটি স্বাধীন দেশের গর্বিত নাগরিক হতে পেরেছি। ঘাতকরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার মাধ্যমে জাতির ইতিহাসে একটি কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করেছিল।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলেও তার স্বপ্ন ও আদর্শ ছড়িয়ে পড়েছে সবখানে। আর তাই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই দাড়িয়ে ১মিনিট নিরবতা পালনের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে আবৃত্তি ও সংগীত পরিবেশন করে বঙ্গবন্ধু কালচারাল ফাউন্ডেশনের আবৃত্তি ও সংগীত বিভাগের সদস্যরা।

Read Previous

সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদের বার্ষিক ওরশ সম্পন্ন

Read Next

চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের এএসআইসহ তিনজন নিহত, আহত ৪

%d bloggers like this: