শিরোনাম
৩৬৫৬ কোটি ব্যয়ে ১১টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন – প্রথম বেলা

৩৬৫৬ কোটি ব্যয়ে ১১টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

বিশেষ প্রতিবেদক : পল্লী বিদ্যুতের আওতায় সাড়ে ৭ লাখেরও বেশি বৈদ্যুতিক খুঁটি ক্রয়ের তিনটিসহ তিন হাজার ৬৫৬ কোটি ৬ লাখ টাকা মূল্যের ১১টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

কমিটির সভাপতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হিসেবে জাপান সফরে গেছেন। তার অনুপস্থিতে বৈঠকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্ব করার কথা ছিল। কিন্তু তিনি অসুস্থ থাকায় তার পরিবর্তে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাসিমা বেগম সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য বিতরণ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় তিনটি পৃথক প্রস্তাবে মোট ৭ লাখ ৬১ হাজার ৫৬০টি বৈদ্যুতিক খুঁটি (এসপিসি পোল) ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী-রংপুর-খুলনা ও বরিশাল বিভাগের জন্য ৪৯৯ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ লাখ ৩০ হাজার ৯২৫টি, ঢাকা-ময়মনসিংহ-চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের জন্য ৫৪৮ কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ লাখ ৩৩ হাজার ৫৮১টি এবং ‘পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৫ লাখ গ্রাহক সংযোগ (১৯.৫ লাখ গ্রাহক সংযোগের সংস্থানসহ ১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পের আওতায় ৮৩০ কোটি ২৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ লাখ ৯৭ হাজার ৫৪টি বৈদ্যুতিক খুঁটি কেনা হবে।

তিনি জানান, বৈঠকে পুলিশ বাহিনীর সক্ষমতা বাড়াতে বিভিন্ন অপারেশনাল কাজে ব্যবহারের জন্য ১২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪০টি এসইউভি (জিপ) এবং ২৮১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬৫০টি ডাবল কেবিন পিক-আপ ক্রয়ের দুটি পৃথক প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিটি জিপের মূল্য ধরা হয়েছে ৯০ লাখ টাকা এবং এগুলো সরবরাহ করবে রাষ্ট্রায়ত্ত ‘প্রগতি ইন্ডস্ট্রিজ লিমিটেড’। অন্যদিকে ডাবল কেবিন পিক-আপ প্রতিটির মূল্য ধরা হয়েছে ৪৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা। এটি সরবরাহ করবে ‘র‌্যাঙ্গস লিমিটেড’।

তিনি জানান, এছাড়া বিভিন্ন স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে ব্যবহারের জন্য ২৯৭টি ক্রস কান্ট্রি ভেহিক্যাল ক্রয়ের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এসব জিপ সরবরাহের কাজটি পেয়েছে ‘র‌্যাঙ্গস লিমিটেড’। প্রতিটি জিপের মূল্য ৫৬ লাখ ৭৯ হাজার টাকা হিসেবে এতে ব্যয় হবে ১৬৮ কোটি ৭৭ লাখ টাকা।

অতিরিক্ত সচিব জানান, অন্যান্যের মধ্যে চলতি বছর ভারতের নুমালিগড় রিফাইনারি লিমিটেড থেকে ১ লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল পার্বতীপুর ডিপোতে আমদানি করা হবে। এতে ব্যয় হবে ৫৮২ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। ব্যারেল প্রতি ডিজেলের প্রিমিয়াম ধরা হয়েছে সাড়ে ৫ ডলার।

এছাড়া ২৮১ কোটি ৯৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ’ প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এতে যৌথভাবে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছে স্পেনের ‘টেকনিকা’- দক্ষিণ কোরিয়ার ‘দোহওয়া ইঞ্জিনিয়ারিং’ ও দেশীয়  প্রতিষ্ঠান ‘ডিডিসি’।

অতিরিক্ত সচিব জানান, বৈঠকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে সৌদি আরবের ‘সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন’ থেকে প্রথম লটের ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রতিটনের দর ২৮২ ডলার হিসেবে এতে মোট ব্যয় হবে ৫৯ কোটি ৫৭ লাখ টাকা।

তিনি জানান, চুক্তি অনুযায়ী সৌদি প্রতিষ্ঠান থেকে ৩ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানি করা হবে এবং প্রয়োজনে আরও অতিরিক্ত ১ লাখ টন সার আনা যাবে। যেহেতু সরকারি পর্যায়ে চুক্তির আওতায় সার আনা হচ্ছে সেহেতু পরবর্তী লটগুলোর আমদানির প্রস্তাব অনুমোদনের ক্ষমতা শিল্পমন্ত্রীর ওপর ন্যস্ত করা হয়েছে। সেগুলো ক্রয় কমিটিতে উপস্থাপন ছাড়াই মন্ত্রী নিজ ক্ষমতাবলে অনুমোদন দিতে পারবেন।

0 Reviews

Write a Review

Read Previous

ঢাকা দক্ষিণের উন্নয়নে ৮৪৩ কোটি টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

Read Next

নুসরাত হত্যা: ১৬ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট

%d bloggers like this: